বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সালথায় “ভাষা দিবস সিক্স-এ-সাইউ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট অনুষ্টিত | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে আলো প্রজ্জ্বলন করে ভাষা শহীদদের স্মরণ করলো বন্ধুসভা  | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে অমর একুশে গ্রন্থমেলা ও নগরকান্দায় দু’দিন ব্যাপী বই মেলার উদ্বোধন | ফরিদপুর সংবাদ  দুর্ঘটনায় যাত্রীবাহী বাসের যাত্রীদের তাৎক্ষণিক সহযোগিতায় হাইওয়ে পুলিশের ব্যতিক্রম উদ্যোগ | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে খেলাঘরের উদ্যোগে মহান শহীদ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান | ফরিদপুর সংবাদ  একুশের প্রথম প্রহরে শহিদ মিনারে লাবু চৌধুরী এমপির শ্রদ্ধা নিবেদন | ফরিদপুর সংবাদ  চরভদ্রাসনে নানা আয়োজনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২৪ পালিত | ফরিদপুর সংবাদ  সদরপুরে জাটকা সংরক্ষণে অভিযান অব্যাহত | ফরিদপুর সংবাদ  প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে দেবে না জনগন-জসীম পল্লী মেলার সমাপনীতে মৎস্য ও প্রানিসম্পদ মন্ত্রী | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে ‌বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ‘পিতা’ এবং ‘মুজিব মঞ্চ’ এর উদ্ধোধন | ফরিদপুর সংবাদ 

প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনীর জন্য বরাদ্দকৃত সরকারি অর্থ লোপাটের অভিযোগ | ফরিদপুর সংবাদ 

বোয়ালমারী ( ফরিদপুর ) প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
  • ১৭৬ Time View

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠানের জন্য সরকারিভাবে বরাদ্দ ২ লক্ষ ৪৯ হাজার টাকা নয়-ছয় ও লোপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ৫০টি স্টল থাকার কথা থাকলেও ২৯ টি স্টল এবং দায়সারা একটি ছোট স্টেজে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেন। অধিকাংশ আগত অতিথিদের দুপুরের খাবার না পেয়ে অভূক্ত অবস্থায় ফিরে যেতে দেখা গেছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানস্থলে প্রয়োজনীয় সংখ্যার চেয়ে অনেক কম চেয়ার থাকায় গণমাধ্যমকর্মীসহ অনেকেই পুরো অনুষ্ঠানেই দাঁড়িয়ে ছিলেন। অনুষ্ঠান মঞ্চের সামনের সামান্য অংশে মাথার উপর শামিয়ানা থাকায় তীব্র রোদে অনুষ্ঠানস্থলে আসা লোকদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এছাড়া অতিথি হিসেবে মঞ্চে উপস্থিত থাকলেও পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মান্নান মাতুব্বর এবং পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম মো. মোরশেদুর রহিমকে অন্যান্যদের সাথে ফুলের তোড়া দেয়া হয়নি। পরে উপজেলা চেয়ারম্যানের নির্দেশে তাদেরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এমনই নানান বিশৃঙ্খলার মধ্যে এবার প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। প্রসঙ্গতঃ গতবারও নানান বিশৃঙ্খলা এবং চরম অব্যবস্থাপনায় বর্তমান উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার নেতৃত্বে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দিনব্যাপী স্থানীয় হেলিপ্যাড চত্বরে এই প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ও ভেটিরিনারি হাসপাতালের বাস্তবায়নে এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরাধীন প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পের (এলডিডিপি) সহযোগিতায় এই প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।
জানা যায়, প্রদর্শনী অনুষ্ঠানটি সকাল সাড়ে ৯টার সময় উদ্বোধনের কথা থাকলেও বেলা ১২টার সময় উদ্বোধন করায় অনুষ্ঠানে আগতদের তীব্র রোদে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে খাতওয়ারি দিকনির্দেশনা দিয়ে সরকারিভাবে বরাদ্দ ছিল দুই লক্ষ ৪৯ বাজার টাকা। ভ্যাট বাবদ ত্রিশ হাজার টাকা বাদ দিলে দুই লক্ষ ঊনিশ হাজার টাকা খরচ করার এখতিয়ার ছিল উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার। খাতওয়ারি নির্দেশনার মধ্যে ছিল প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে ৫০টি স্টল বাবদ বরাদ্দ ব্যয় ৬৯ হাজার ৫০০ টাকা। উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. নারায়ন চন্দ্র সরকার অর্থ লোপাট করতে নির্ধারিত ৫০টি স্টলের স্থলে ২৯টি স্টল দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। হেলিপ্যাডে পর্যাপ্ত স্থান থাকলেও কমসংখ্যক স্টল করা হয়। ফলে ২৯টি স্টলে ৫৬ জন খামারী গাদাগাদি করে তাদের গরু, ছাগল প্রদর্শন করেন। এছাড়া একটি ছোট স্টেজ করে দায়সারাভাবে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেন।
উপজেলার গুনবহা ইউনিয়নের রেনিনগর গ্রামের ছাগলের খামার মালিক মো. আবীর হোসেন প্রদর্শনীতে চারটি ছাগলের বাচ্চাসহ উৎকৃষ্ট মানের একটি ছাগল এনে স্টলের শোভাবর্ধন করলেও ছাগল আনা-নেওয়া বাবদ কোন খরচ দেওয়া হয়নি বলে সাংবাদিকদের জানান। সদর ইউনিয়নের চালিনগর গ্রামের বিল্লাল শেখ বলেন, প্রদর্শনীর আগে গরু আনা-নেওয়ার জন্য খরচ দিতে চেয়েছিল, কিন্তু পরে কোন খরচ পাইনি।
অনুষ্ঠান শেষে স্টল মালিকদের এক প্যাকেট করে খাবার
দিলেও অধিকাংশ আগত অতিথিদের অভূক্ত অবস্থায় ফেরত যেতে দেখা গেছে।
জানা যায়, দুপুরের খাবার বাবদ ব্যয় হিসেবে সরকারিভাবে বরাদ্দ ছিল ৬০ হাজার টাকা। স্টলের মালামাল পরিবহনের জন্য গাড়ি ভাড়া বাবদ ১০ হাজার টাকা এবং অনুষ্ঠানটি ব্যাপক প্রচারের জন্য ৫ হাজার টাকা বরাদ্দ ছিল। এছাড়া অনুষ্ঠানের সরকারি ভাবে খাতওয়ারী বরাদ্দের মধ্যে ছিল ২টি ব্যানার তৈরির জন্য এক হাজার ৫শ টাকা, প্যান্ডেল, স্টেজ, ত্রিপল, ফ্যান, সাউন্ড সিস্টেম, ডেকোরেশন এবং ৫০টি স্টলের জন্য ৬৯ হাজার ৫শত টাকা। আমন্ত্রণপত্র ছাপানো বাবদ ৫ হাজার টাকা হলেও হাতেগোনা কয়েকজনকে আমন্ত্রণ পত্র দেয়া হয়।
এইভাবে খাতওয়ারি সরকারি নির্দেশনা দিয়ে বরাদ্দ থাকলেও প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. নারায়ন চন্দ্র সরকার ব্যয় সংকোচন করে টাকা লোপাট করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এর আগেও এই প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা গত বছর করোনাকালীন সময়ে ক্ষতিগ্রস্ত খামারি ও পোল্ট্রি চাষীদের নামে ভূয়া তালিকা করে টাকা আত্মসাত করেছিলেন বলে অভিযোগ ছিল।
এ ব্যাপারে বোয়ালমারী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. নারায়ন চন্দ্র সরকারের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘স্টল পঞ্চাশটিই হতে হবে এমন নয়। যেভাবে সুন্দর হয় সেভাবে করার কথা। অনেক উপজেলায় ২০/৩০টি স্টলও করেছে।’ প্রদর্শনী স্টলে খামারীদের প্রাণি আনা-নেওয়ার খরচের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যারা লিস্টেড তাদের খরচ দেয়া হবে। একজনের তিনটি গরু প্রদর্শনীর জন্য তিনজনে নিয়ে আসলেতো তিনজনকে খরচ দেয়া হবে না।’
এদিকে প্রদর্শনী বুধবার অনুষ্ঠিত হলেও রবিবার পর্যন্ত কোন খামারীই প্রদর্শনীস্থলে গরু আনা-নেওয়ার জন্য কোন খরচ পাননি বলে জানা গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
error: Content is protected !!

Advertise

Ads

Address

Office : Room#1002, Kanaipur, Faridpur, Dhaka. Mobile : 01719-609027, Email : faridpursangbad.com
© All rights reserved 2020. Faridpur Sangbad

Design & Developed By: JM IT SOLUTION