শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নগরকান্দায় সাংবাদিক লায়েকুজ্জামানের স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত | ফরিদপুর সংবাদ  গোপালপুর ঘাটে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়াঁ আদায় | ফরিদপুর সংবাদ  বোয়ালমারীতে এতিম শিক্ষার্থীরা পেল শিক্ষাপোকরণ ও অর্থ সহায়তা | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে ‌বই ঘাটার উদ্যোগে ‌ সাঁতার ষষ্ঠ প্রকাশনা সমাবেশ অনুষ্ঠিত | ফরিদপুর সংবাদ  নগরকান্দায় গ্রন্থ মেলা পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক | ফরিদপুর সংবাদ  সালথায় “ভাষা দিবস সিক্স-এ-সাইউ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট অনুষ্টিত | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে আলো প্রজ্জ্বলন করে ভাষা শহীদদের স্মরণ করলো বন্ধুসভা  | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে অমর একুশে গ্রন্থমেলা ও নগরকান্দায় দু’দিন ব্যাপী বই মেলার উদ্বোধন | ফরিদপুর সংবাদ  দুর্ঘটনায় যাত্রীবাহী বাসের যাত্রীদের তাৎক্ষণিক সহযোগিতায় হাইওয়ে পুলিশের ব্যতিক্রম উদ্যোগ | ফরিদপুর সংবাদ  ফরিদপুরে খেলাঘরের উদ্যোগে মহান শহীদ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান | ফরিদপুর সংবাদ 

নারীদের তৃণমূল থেকে মূল্যায়ন করলে, পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করা সম্ভব | ফরিদপুর সংবাদ 

নিরঞ্জন মিত্র নিরু, ফরিদপুরঃ
  • Update Time : বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০২২
  • ১৮২ Time View

ফরিদপুর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক (উপসচিব) মোহাম্মদ আসলাম মোল্লা বলেছেন, নারীদের প্রতিনিধি বাড়াতে হলে তৃণমূল থেকেই তাদের মূল্যায়ন করতে হবে। তৃণমূলে পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করলে ইএএলজি প্রকল্পভুক্ত পৌরসভা, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদ হবে উন্নয়নের মডেল। পরবর্তীতে জাতীয় পর্যায়ে নারীরা ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।এতে নারীদের অংশগ্রহণ আরও বেশি বেশি বাড়াতে হবে। নারী জনপ্রতিনিধিদের পরিষদের আইন সম্পর্কে জানাত হবে। উন্নয়ন কার্যক্রমসহ প্রতিটি সিদ্ধান্ত গ্রহন প্রক্রিয়ায় নারীর কার্যকরী অংশগ্রহন নিশ্চিত করতে হবে এবং এজন্য নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন আরও বেশী প্রয়োজন। পাশাপাশি নারী যদি অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয় তাহলে সমাজ ও রাষ্ট্রের সার্বিক উন্নয়নে সে অবদান রাখতে পারবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার (ইএএলজি) প্রকল্পের সহযোগিতায়, ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে, (১২ অক্টোবর) বুধবার সকাল ১০ টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানে নারীর অংশগ্রহণে বর্তমান প্রেক্ষাপট এবং ভবিষ্যত করনীয় বিষয়ক সম্মেলনের সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, নারী প্রতিনিধিদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে যথাযথ সুযোগ না পাওয়া। নারীদেরকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে হবে। নারীর অর্থনৈতিক মুক্তিই পারে নারীর অধিকার নিশ্চিত করতে। স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ যতদিন শক্তিশালী না হবে ততদিন সুশাসন নিশ্চিত হবে না। সুশাসন নিশ্চিত না হলে দুর্নীতিও প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে না বলে জানান।

এসময় সম্মেলন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোছাঃ তাসলিমা আলী, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক মাশউদা হোসেন, ইউএনডিপি ইএএলজি’র ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলিটেটর মোঃ মনির হোসেন মজুমদার।

সম্মেলন অনুষ্ঠানে মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়নে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নারী সদস্যদের ভূমিকা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন সেভ দ্যা চিলড্রেন মা মনি এম এন সি এস প্রকল্পের প্রতিনিধি মোঃ বিপ্লব হোসেন ও মোঃ শাহ আলম।

দিনব্যাপী সম্মেলনে জেলার ইএএলজি প্রকল্প ভুক্ত ২ টা পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর, ৯ টা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও ৩০ টি ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্যগণ অংশগ্রহণ করেন।

এসময় সম্মেলনে নারী জনপ্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে নারী জনপ্রতিনিধিরা বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন, এবং অভিযোগ শুনে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন সম্মেলন অনুষ্ঠানের সভাপতি স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক (উপসচিব) মোহাম্মদ আসলাম মোল্লা।

অভিযোগে নারী জনপ্রতিনিধিরা জানান, নির্বাচিত নারী জনপ্রতিনিধিরা স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানে সব স্তরে অবহেলার শিকার হচ্ছে। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হলেও পরিষদে তাদের নেই সুনির্দিষ্ট কোন কাজ, নেই কোন মূল্যায়ন।
দায়িত্ব পালনে প্রতিনিয়ত বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন নারী প্রতিনিধিরা। তারা বলেন, উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে তাদের নেই কোন ভূমিকা। পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের নেই কোন সম্পৃক্ততা। চেয়ারম্যান বা মেয়রের অনুপস্থিতিতে কর্মকান্ডের পরিচালনার জন্য প্যানেল চেয়ারম্যান বা মেয়রের তালিকায় তাদের রাখা হয় না। তারা জানান, নির্বাচনের আগে জনগণের কাছে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট নিলেও এখন তাদের কাছে কোন প্রকার জবাবদিহিতা করা সম্ভব হচ্ছে না।
এ অবস্থা চলতে থাকলে আগামীতে নারী নির্বাচনে আগ্রহ হারিয়ে ফেলতে পারে।

এ বিষয়ে বাগাট ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নুরুন্নাহার বলেন, জনগণের কাছে প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচিত হয়ে এখন তাদের কাছে মুখ দেখাতে পারছি না। এবং পরিষদের ১৭ টি স্থায়ী কমিটির মধ্যে ৯ টির সভাপতির দায়িত্ব পালন করা সত্ত্বেও মিটিংয়ে নারীদের কথা কেউ শোনে না।

টগরবন্দ ইউনিয়ন পরিষদের
সংরক্ষিত মহিলা সদস্য শেফালী বলেন, ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্দ আসলে চেয়ারম্যান আমাদের কিছুই বলেন না, এবং পরিষদের আয় ব্যয় সম্পর্কে আমাদের অবগত করেন না। তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্য পদে নারীদের কোন মূল্যায়ন নেই।

ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পারুল আক্তারী বলেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নারীদের ডেকে এনে এক প্রকার অপমাণ করা হয়েছে। মহিলা সদস্যদের একদমই মূল্যায়ন নেই।

এ বিষয়ে সম্মেলনের অতিথিরা অভিযোগের বিষয়ে জানান যে, নব নির্বাচিত নারী জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ তুলে ধরেছেন, তারা নির্বাচিত হওয়ার পর এখনো বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ পাননি। প্রশিক্ষণ না পাওয়ার কারণে পরিষদের কার্যক্রম এবং তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারছেন না। ফলে জনগণ কাঙ্ক্ষিত সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
error: Content is protected !!

Advertise

Ads

Address

Office : Room#1002, Kanaipur, Faridpur, Dhaka. Mobile : 01719-609027, Email : faridpursangbad.com
© All rights reserved 2020. Faridpur Sangbad

Design & Developed By: JM IT SOLUTION